শিক্ষা পদ্ধতি

শিক্ষাবর্ষ

  • তাখাসসুস ফিল ফিকহিল ইসলামী, তাখাসুস ফিল কিরাত ওয়াত-তাজবীদ, কিতাব বিভাগ - শাওয়াল -রমজান
  • ইসলামী কিন্ডারগার্টেন বিভাগ - জানুয়ারী - ডিসেম্বর।

সিলেবাস বিন্যস্তকরণ

শিক্ষাবর্ষের জন্য নির্ধারিত সিলেবাসকে তিন ভাগে ভাগ করা হয়েছে - সকল বিভাগ

  • প্রথম সাময়িক পরীক্ষা- এ পর্বে প্রথম থেকে ৩৫% পাঠদান।
  • দ্বিতীয় সাময়িক পরীক্ষা- এ পর্বে পরবর্তী ৩৫% পাঠদান।
  • বার্ষিক পরীক্ষা। এ পর্বে অবশিষ্ট ৩০% পাঠদান।

ক্লাসে পাঠদান পদ্ধতি

  • ক্লাসে পাঠদান এবং ক্লাসে-ই অধিকাংশ পাঠ আদায়ের মাধ্যমে প্রত্যেক পরীক্ষার জন্য নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সিলেবাস সমাপ্ত করা হয়।
  • বিভিন্ন উপকরণ ও কৌশলের মাধ্যমে হাতে কলমে শিক্ষা প্রদান।
  • ক্লাসের সকল শিক্ষার্থীর কাছে পাঠকে সহজ, সাবলীল ও বােধগম্য করার মাধ্যমে সকল মানের শিক্ষার্থীর উত্তরােত্তর অগ্রগতি নিশ্চিত করা হয়।
  • অপেক্ষাকৃত দুর্বল শিক্ষার্থীদের দৈনিক বিশেষ তত্ত্বাবধান।

আসন সংখ্যা

শিক্ষার্থী বেশি হলে তাদের পরিপুর্ণ পরিচর্যা ও প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধান সম্ভব হয় না। তাই প্রত্যেক শ্রেণীতে নির্দিষ্ট কোটায় ভর্তি করা হয়; যা নিম্নরূপ

  • তাখাসসুস ফিল ফিকহিল ইসলামী - ২০ জন
  • তাখাসসুস ফিল কিরাআত ওয়াত তাজবীদ - ২০ জন
  • বিশেষ নাজেরা বিভাগ- (প্রত্যেক শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে) - ২৫ জন
  • হিফজ বিভাগ- (প্রত্যেক শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে) -১৫ জন
  • ইসলামী কিন্ডারগার্টেন বিভাগ- নারি (প্রত্যেক শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে)
    • নার্সারী(প্রত্যেক শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে) - ৩৫ জন
    • ১ম শ্রেণি (প্রত্যেক শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে) - ২৫ জন
    • ২য় শ্রেণি (প্রত্যেক শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে) - ২৫ জন
    • ৩য় শ্রেণি (প্রত্যেক শিক্ষকের তত্ত্বাবধানে) - ২৫ জন

সাংস্কৃতিক কর্মসূচি ও প্রশিক্ষণ

  • শিক্ষার্থীদের প্রতিভা বিকাশে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে শিক্ষার্থীরা তিলাওয়াত, হামদ-নাত, ইসলামী সংগীত, আবৃত্তি, সাধারণ জ্ঞান, বক্তব্য ইত্যাদি পরিবেশন করে তাদের সুপ্ত প্রতিভাকে বিকশিত করে।
  • অতিজ্ঞ ওস্তাদ এবং প্রজেক্টরের মাধ্যমে অনুশীলনের ব্যবস্থা।
  • শিক্ষা সফরের ব্যবস্থা।